1. admin@ekattortribune.com : admin :
  2. ekattortribune2020@gmail.com : Ekattor Tribune : Ekattor Tribune
রাজনীতি নির্বাসনে গেলে আমলাতন্ত্র বেপরোয়া হয় - একাত্তর ট্রিবিউন
শনিবার, ১২ জুন ২০২১, ১১:০৬ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :

রাজনীতি নির্বাসনে গেলে আমলাতন্ত্র বেপরোয়া হয়

ফয়সাল চৌধুরি, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
  • বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১
  • ৬৬ বার
রাজনীতি নির্বাসনে গেলে আমলাতন্ত্র বেপরোয়া হয়

রাজনীতি নির্বাসনে গেলে আমলাতন্ত্র বেপরোয়া হয়। বাড়ির মালিকের চারিত্রিক দুর্বলতার খবর জেনে গেলে একইভাবে নিরাপত্তারক্ষী বাড়তি খাতির পায়। জনমানুষের নেতা শেখ মুজিবুর রহমান কেরানীতন্ত্রের বাড়ন্ত ছেটে দিয়েছিলেন, ৬৮ হাজার গ্রাম বাঁচানোর তকমা নিয়ে গরিব দেশের প্রেসিডেন্ট এরশাদ সুবিধার দরজা খুলে দেন আমলাদের সামনে। তারপর একদিন গেরস্থকে হটিয়ে রাষ্ট্রের এসব চাকরেরা মালিক বনে যান, গণতন্ত্রকে বস্তায় ভরে তারা দলে দলে সংসদে ঢুকে পড়েন।

মহান মুক্তিযুদ্ধের পুরো সময়টা ময়মনসিংহে পাকিস্তানী আজ্ঞাবহ আমলা।খাল কাটা তত্বে ডক্টরেট নেন। ১৯৯৬ সালে সচিবালয় থেকে মিছিল নিয়ে জনতার মঞ্চে যোগ দিয়ে তিনি বারোটা বাজান।আমলাতন্ত্র ছেড়ে প্রতিমন্ত্রী, তারপর মন্ত্রী। আওয়ামী লীগের পঞ্চাশ বছরের গৌরবের মুখে কালি লেপ্টে এই আমলা সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যও হয়েছেন। আরাম-আয়েশের চাকরি, মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ পদ নিয়েও তিনি থেমে থাকেননি। একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় ও একটি প্রাইভেট ব্যাংক নিজের নামে অনুমোদন নিয়েছেন (নিয়েছিলেন)। বাংলাদেশ ব্যাংক, এনবিআর ও দুদক কতটা নতজানু হলে একজন চাকুরের নামে (ব্যবসা বা শিল্পপতি নন) ব্যাংক দিলেও অর্থের খোঁজ নিতে সাহস করে না।

পদ্মার বুকে বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া সে ফরমার্স ব্যাংকের কাহিনী আমরা জানি। একজন মেধাবী ও জাত আমলা মখা’র ঝাঁকুনি তত্বে রানাপ্লাজা ধসে পড়ার পাশাপাশি পুরো জাতির মেরুদণ্ডও ভেঙে গেছে।এক আমলাকে নিয়ে এ আলোচনাা থেকে নিশ্চয়ই আমলাতন্ত্রের ভয়াবহতা বুঝতে বাকি থাকার কথা নয়। রাশিয়া, চীন, ফেরাউন ও খলিফারাও যে আমলাতন্ত্র রুখতে পারেনি, তা আমাদের মধ্যেও সগৌরবে আছে বলে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান স্বীকার করেছেন। ঘাস লাগাতে, পুকুর কাটা শিখতে এদেশের আমলারা স্বপরিবারে বিদেশ সফর করেন।

২৫০ টাকার সুঁই তারা ২৫ হাজারে ক্রয়ের অনুমোদন দেন, নিষেধ সত্বেও মুখ ফসকে টিকার গোপন কথা বলে দেন, ছাগলকে জরিমানা করে নিজের জাত চেনান।বহুতলা ভবনের মালিক মনে করে অসুস্থ ব্যক্তিকে লম্বা মানুষ খাওয়ানোর বোঝা চাপিয়ে দেন।কুষ্টিয়ায় কথিত সন্ত্রাসী রাজনৈতিক নেতার কোট পরে সাংবাদিক হত্যার পরিকল্পনা জানার পরেও চুপ করে থাকেন।পরে অবশ্যই জানাতে বাধ্য হলেন। সাংবাদিক রোজিনাকে সচিবের দফতরের মিজান নামের এক কনস্টেবল তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন ।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসেন মিয়ার একান্ত সচিব (পিএস) মো. সাইফুল ইসলাম ভূঞার (সিনিয়র সহকারী সচিব) কক্ষে থাকা ‘রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ নথি থেকে কাগজ সরিয়েছেন’—এমন অভিযোগ তুলে বিকেল ৩টা থেকে আটকে রাখা হয় সাংবাদিক রোজিনাকে। কেড়ে নেয়া হয় তার মোবাইল ফোনও। সচিবালয়ের ৩ নম্বর ভবনের চতুর্থ তলার ৩৩৯ নম্বর কক্ষে সচিবের দফতরের আটকে রাখেন। দীর্ঘ পাঁচ ঘণ্টা সচিবালয়ে আটকে রেখে সাংবাদিক রোজিনাকে নেয়া হয় থানায়।

এ বিষয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন ফেসবুকে এক পোস্টে জানান,প্রথম আলোর রিপোর্টার রোজিনা ইসলামকে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগে আটকে রেখে হেনস্থা করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও তথ্যমন্ত্রীর এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিবের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন।পরে অবশ্য রোজিনা ইসলামের জামিন হয়।কিন্তু ওনার যে ক্ষতি ও সন্মান হানি হয়েছে তা কেউ ফিরিয়ে দিতে পারবেন।?

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের কল্যানপুরে ডাকাত তাসেরের আস্তানায় নিরাপত্তা কর্মী রাশেদকে পিটিয়ে হত্যা করে তার অনুসারিরা। যুবককে পিটিয়ে হত্যার দায়ে তাসের ডাকাতের ফাঁসির দাবিতে উত্তাল কুষ্টিয়ার দৌলতপুর। কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার কল্যানপুর এলাকার এক মূর্তিমান আতঙ্কের নাম তাসের ডাকাত। বর্তমানে তাসের পীর নামে বেশ পরিচিতি রয়েছে।এলাকার মানুষ তাসেরের কুকর্মের কথা মুখে নিয়ে আসতেও ভয় পায় এলাকার এমন কোন সাধারণ মানুষের সংখ্যা খুব কম আছে যারা ডাকাত তাসের পীরের আস্তানার ক্যাডারদের হাতুড়ির বাড়ি খায় নাই।

এদিকে কুষ্টিয়ায় ভন্ড পীর শামিম ভন্ডামি করছে অভিযোগ আনে এলাকার ধর্মভীরু সাধারন জনগন তারই ধারাবাহিকতায় ৩০শে মে দুপুরে ভন্ড পীর শামীমের বিরুদ্ধে ধমীয় অনুভূতিতে আঘাত হানায় দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক, কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার,উপজেলা নির্বাহী অফিসার,দৌলতপুর ও দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেন দৌলতপুর উপজেলার ৩নং ফিলিপনগর ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগনের পক্ষে স্মারকলিপি জমা দেয়।

কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের আ ক ম সারোয়ার জাহান বাদশা এমপিসহ কুষ্টিয়ার গণমাধ্যম কর্মী বার বার প্রতিকার চাওয়ার পরেও অদৃশ্য পেত আত্মা খুঁটির জোরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়নি কোন দৃষ্টান্ত পদক্ষেপ।এ যেন চলছে গাড়ী শিশিমপুরে। এই আমলারা রাজনীতি থেকে জনগণকে বিচ্ছিন্ন করার মওকা আবিস্কার করে এমপি-মন্ত্রীদের পকেটে পুরেছেন।সামন্তপ্রথার মোড়কে জমিদারীত্ব টিকে ছিল, টেকেনি ফ্যাসিস্ট ও বুরোক্রেসি। আজ অথবা কাল সব ক্ষমতার উৎসের জনগণের কাছে জবাবদিহি করতেই হবে, তখন আজকের মহাপরাক্রমশালী আমলারা কাপড় নিয়ে পালাতে পারবেন বলে বিশ্বাস হয় না। কুষ্টিয়ায় ভুয়া অনলাইন পোর্টালে সরকারবিরোধী অপপ্রচার সাম্প্রদায়িক বিরোধী উস্কানিমূলক পোস্ট নারীসহ সাধারণ মানুষের চরিত্র হননকারী ও স্বাধীনতা বিরোধীদের গ্রেপ্তার ও আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কুষ্টিয়া জেলা শাখার মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করে।

সংবাদ মাধ্যম আস্থা হারাচ্ছে। জেগে ওঠা নাগরিক সত্য-মিথ্যা বোঝে। অনলাইনের অন্তর্জালে তথ্যের অবাধ প্রবাহ সাংবাদিকতাকে দাঁড় করিয়েছে সীমান্তরেখায়। কালো পাত্রীর কদর না থাকলেও কালো টাকার আছে। প্রকৃতির সঙ্গে নষ্টদের রসিকতায় রাষ্ট্র উদার, শাস্তির বদলে চোর, ডাকাতরা সম্মান পায়। দাম বাড়া কমার হিসাব না বোঝা জনগণ বরাবরই বাজেট মানেই দরবেশ বাবাদের মওকা বোঝে। পরিবারের অভুক্ত মুখগুলোর কষ্ট সইতে না পেরে রিক্সা নিয়ে রাস্তায় নামা ভাইদের কানধরে ওঠবস করাচ্ছে পুলিশ, বিক্ষোভ-প্রতিবাদে সেখানে নিশ্চিত অস্ত্র গর্জে ওঠে। নিজ দেশে পরবাসী হাজারো বেকার, কর্মসংস্থান দূরের কথা চীনের থেকে আয়ে এগিয়ে থাকা দেশে নুন আনতে পানতা শেষ।

উন্নয়নের জোয়ারে ভাসতে থাকা মধ্যবিত্তের ঘরে আলুভর্তা সাদা ভাতেও টান পড়েছে। রাজনীতিবিদরা সমতলে পুকুর ভরাট, ভাঙা বাঁধের বালিয়াড়ি আর সরকারকা মাল ইউরোপ-আমেরিকার বেগমপাড়ার দরিয়ায় ঢালে। পৃথিবীর বাইরেও তাদের চাহিদার জিহ্বা লক লক করে, ফেরার পথ না থাকায় তারা লোভ সামলাতে বেসামাল, ছুটতেই থাকে। ক্ষমতার অশ্বারোহীর শরীর দখলে নেয় পচঁনখাদক পোকা। কথিত উন্নয়নের জোয়ারে ভেঙে যাওয়া বাঁধ নির্মাণ আর ঊর্ধ্বমুখী তেল-নুন-ওষুধের দাম হাসিমুখে পরিশোধ করে মানুষ।

খুনের তকমা থাকলেও বসুন্ধরার আনভিররা জনমানুষের আবেগ শেখ রাসেল স্মৃতিকে কালো টাকায় ঢেকে রাখে। পুলিশ খুঁজে না পেলেও টিভি পর্দায় তারা সংবর্ধিত হয়, বিনা ভোটে নির্বাচিত হয়ে ভি-চিহ্ন দেখায়। করোনাভাইরাস বাড়ছে। বহুগুনে বাড়ছে স্বাস্থ্যবিভাগের দুর্নীতি। ২৫০ টাকার সুঁই কিভাবে ২৫ হাজার টাকা হয় তা নিয়ে তর্কে মেতেছে মাতাল ও পাগলরা। তাদের ধারণা, তারাও হিসেবে অতটা বোকা না। রাজনীতি নির্বাসনে গেলে আমলাতন্ত্র এমনি বেপরোয়া হয়।

আর এস//

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর পড়ুন

বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
১৭৫,০১৬,৫০১
সুস্থ
১১৩,১৯৫,৯৪৩
মৃত্যু
৩,৭৮২,৪৯১

নামাজের সময় সূচি

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৬
  • ১২:০১
  • ১৬:৩৭
  • ১৮:৪৯
  • ২০:১৫
  • ৫:১০

Website Live Visitor

0 3 8 7 4 9

বিজ্ঞাপন

Add-01
Add-512 By 512
©All rights reserved © Ekattortribune.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
English